উইন্ডোজ আইএসও এবং ইউনিভার্সাল ড্রাইভার

আইএসও ফাইলগুলো মিনিমাম দরকারী কিছু স্পেশাল মডিফিকেশনের মাধ্যমে তৈরী করেছি যাতে ইউজার এক্সপেরিয়েন্স ভালো হয়। উল্লেখ্য সবগুলো অরিজিনাল এমএসডিএন ভেরিফাইড উইন্ডোজ আইএসও থেকে ক্রিয়েট করা হয়েছে। একনজরে এই উইন্ডোজ আইএসও ফাইলগুলোর অন্যতম ফিচার যা নরমালগুলোতে পাওয়া যাবেনা…


মডিফিকেশন সমূহ

১. সবগুলো প্রো ভার্শন দেওয়া হয়েছে এবং প্রিএক্টিভেট করা হয়েছে কেএমএস পিকো দিয়ে যাতে পরবর্তীতে অফিস ২০১০, ২০১৩, ২০১৬ প্রো সেটাপ দিলে সেটাও আলাদা করে এক্টিভেট করা না লাগে, অফিস সেটাপের পর জাস্ট রিস্টার্ট দিলে সেটাও অটো এক্টিভেট হবে।
২. ডট নেট ফ্রেমওয়ার্ক ৩.৫ এড করা হয়েছে উইন্ডোজ ৮.১ ও ১০ এ এবং ডট নেট ফ্রেমওয়ার্ক ৪.৬ এড করা হয়েছে উইন্ডোজ ৭ এ।
৩. উইন্ডোজ ১০ এ ট্রেডিশনাল ক্যালকুলেটর এড করা হয়েছে যা উইন্ডোজ ৭ এবং ৮.১ এ ছিল, সার্চ দিয়ে বা অল অ্যাপস থেকে উইন্ডোজ এক্সেসরিজে পাওয়া যাবে।
৪. মাইক্রোসফট ডার্ট ৭, ৮.১, ১০ রিকভারী এড করা হয়েছে বুট ইমেজে, রিপেয়ার ইউর কম্পিউটার সেকশনে পাওয়া যাবে।
৫. ডাইরেক্ট এক্স ৯ ও ডাইরেক্ট প্লে এড করা হয়েছে, যাতে গেমস ইন্সটল এর ক্ষেত্রে কোন সমস্যা না হয়।
৬. ইন্সটল ইমেজকে হাইলি কম্প্রেসড ইএসডি রিকভারী ফরমেটে কনভার্ট করা হয়েছে।
৭. উইন্ডোজ প্রো এডিশনগুলোতে নরমালি কোন গেমস থাকে না, মাইক্রোসফট গেমসগুলো এড করা হয়েছে, উইন্ডোজ ৭, ৮.১, ১০ এর অল অ্যাপস থেকে গেমস সেকশনে আছে।
৮. উইন্ডোজ ৭ এর পর গ্যাজেট সাপোর্ট দেওয়া হয়নি, উইন্ডোজ ৮.১, ১০ এ গ্যাজেটস এড করা হয়েছে, ডেস্কটপে রাইট ক্লিক করে গ্যাজেটস সিলেক্ট করা যাবে।
৯. ডিফল্ট একাউন্ট পিকচার সাইবারস্পেস লোগো দেওয়া হয়েছে।
১০. উইন্ডোজ ৮.১ ও ১০ এর ডিফল্ট ডেস্কটপ ও লকস্ক্রিন চেঞ্জ করে হাই রেজুলিউশন ওয়ালপেপার সেট করা হয়েছে।
১১. কন্ট্রোল প্যানেল আইটেমস সেপারেট ও লার্জ আইকন দেওয়া হয়েছে।
১২. এক্সপ্লোরারের অটোপ্লে অফ করা হয়েছে।
১৩. ডেস্কটপে মাই কম্পিউটার, কন্ট্রোল প্যানেল ও রিসাইকেল বিন আইকন এড করা হয়েছে।
১৪. একটি নতুন থিম এড করা হয়েছে যেটাতে ১৫০ টা হাই রেজুলিউশন ওয়ালপেপার আছে এবং যা ৩০ মিনিট পর পর অটো চেঞ্জ হবে, ডেস্কটপে রাইট ক্লিক করে পারসোনালাইজ থেকে থিমস সেকশন থেকে থিম চেঞ্জ করা যাবে।
১৫. আর শেষমেস উইন্ডোজ আপডেট অফ করে দেওয়া হয়েছে। কারো দরকার হলে ডিভিডির সেটাপ টুলস ফোল্ডারে আপডেট এনেবল করার স্ক্রিপ্ট পাওয়া যাবে।

আর ইউনিভার্সাল ড্রাইভার প্যাকের বিশেষত্ব হচ্ছে এটা দিয়ে আপনি যেকোন উইন্ডোজ, যেকোন কম্পিউটার এর ড্রাইভার আপডেট করতে পারবেন খুবই সহজে। জাস্ট ইন্সটল করলে আপনার কম্পিউটারের ড্রাইভারগুলো ডিটেক্ট করে ইন্সটল করে নিবে অটো। মাঝে যেকোন অনুমতি চাইলে ইয়েস দিয়ে দিবেন শুধু, আর কোন কারনে একবার কোন সমস্যা হলে আরেকবার ইন্সটল দিবেন!

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s